ছুটির ফাঁদে বাংলাদেশ

ঈদুল আজহার ছুটি শুরু হয়েছে। এই ঈদে নথিপত্রে সরকারি ছুটি ৩ দিন হলেও কার্যত টানা ১৯ দিনের ছুটির ফাঁদে পড়েছে বাংলাদেশ। ঈদের ছুটি ও সাপ্তাহিক ছুটি ছাড়াও করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে ঘোষিত কঠোর বিধি-নিষিধের আওতায় অফিস. দোকানপাট ও গণপরিবহন বন্ধ থাকায় এই টানা দীর্ঘ ছুটি শুরু হয়েছে।

মঙ্গলবার (২০ জুলাই) থেকে শুরু হয়েছে ঈদের ছুটি। ২০, ২১ ও ২২ জুলাই তিনদিনের ঈদের পর পরই থাকছে শুক্র ও শনিবারের সাপ্তাহিক ছুটি (২৩ ও ২৪ জুলাই)। ফলে ঈদের ছুটি থাকছে পাঁচ দিনের।

এর মধ্যেই ২৩ জুলাই সকাল থেকে শুরু করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে কঠোর বিধিনিষেধের আওতায় অঘোষিত ছুটি। কঠোর এই বিধিনিষেধ শেষ হবে ৫ আগস্ট দিনগত মধ্যরাতে। অর্থাৎ মোট ১৪ দিন থাকছে বিধি-নিষেধ। এই বিধি-নিষিধে সরকারি, আধাসরকারি, স্বায়ত্বশাসিত ও বেসরকারি অফিস বন্ধ রাখা হবে। বন্ধ থাকবে সব শিল্প কারখানা এবং গণপরিবহন।

আগামী ৫ আগস্ট কঠোর বিধিনিষেধের সময়সীমা শেষ হওয়া পরদিন শুক্র ও শনিবার (৬ ও ৭ আগস্ট) সাপ্তাহিক ছুটি। নতুন করে বিধিনিষেধ আরোপ করা না হলে ৮ আগস্ট থেকেই শুরু হবে সব অফিসের কার্যক্রম। এর মধ্যে অবশ্য সরকারি চাকরিজীবীদের ঈদের পরে ভার্চ্যুয়াল অফিস করার নির্দেশনা থাকলেও বেসরকারি চাকরিজীবীরা মূলত আগস্টের পুরো প্রথম সপ্তাহ ছুটি কাটাতে পারছেন।

ঈদের ছুটি, সাপ্তাহিক ছুটি আর বিধিনিষেধের অচলাবস্থা মিলিয়ে বলা যায়, টানা ১৯ দিনের ছুটির ফাঁদে পড়েছে বাংলাদেশ।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*